সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বাড়ীতে ভাঙচুর ও মামলা দিয়ে চাকরিচ্যুতির হুমকি "

#
news image

ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলাধীন ৭ নং কাজীরবেড় ইউনিয়ন এর পলিয়ানপুর গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহা: জহুরুল ইসলামের উপর একই গ্রামের মোঃ সাইফুল ইসলাম , মোঃ ইয়ানুর ও তরিকুল ইসলাম  দেশীয় অস্ত্র রামদা , হাসুয়া  ও চাইনিজ কুড়াল দিয়ে এর বাড়ীতে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিত ভাবে হামলা করে।

মোঃ জহিরুল ইসলামের স্ত্রী মোসা:  মোমেনা বেগমের ক্রয় কৃত ১১ শতক জমি কে কেন্দ্র  করে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে পরিকল্পিত ভাবে হামলা করে। হামলায় জহিরুল ইসলামকে মাথায় , মুখ, ও হাতে আঘাত করে। 

এতে তিনি গুরুতর ভাবে জখম হন। চিৎকার শুনে মোঃ  মুছা করিম,মোঃ বোরহানউদ্দিন , ও মোঃ মাজহারুল ইসলাম নয়ন  সাহায্য করতে এগিয়ে এলে তাদেরকেও গুরুতর  ভাবে জখম করা হয়।

এ ধরনের ঘটনায় এলাকা বাসি ও অনেক আতঙ্কে দিন পার করছে। মোঃ মোরশেদুল ইসলাম বলেন আমি অফিস থেকে এসে আমার বাবা দাদার এ অবস্থা দেখে তাদের কে সরকারি সদর হসপিটালে ভর্তি করি।

রাতের বেলা বাড়ি ঘর  ভাঙচুর ও করা হয়েছে। বাড়ীর মূলফটকের তালা ভেঙ্গে বাড়ির ভিতর প্রবেশ করে। ঘরের ক্লপসিপল গেটে আঘাত করে। বাহিরের দরজার হেজবল্ট ভেঙ্গে ফেলে এবং ভিতরে ঢুকার চেষ্টা করে।

অভিযোগ দায়ের করলেও যথাযথ বিচার না হওয়ায় স্থানীয় জনগনের মধ্যে ক্ষোভের  সৃষ্টি হয়েছে।  তিনি আরো জানান তাদেরকে হত্যা ও সম্মানহানি করার জন্য পূর্বপরিকল্পিত ভাবে বাড়ীতে ভাঙচুর ও হামলা চালানো হয়েছে।  

এ বিষয়ে মহেশপুর থানায় গত ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং তারিখে মামলা  রুজো  করা হয়।  যার নম্বর মহেশপুর থানা মামলা  ৪০/২৪ নং  দায়ের করা হয়েছে কিন্ত আসামীগণ এখনও ঘুরে বেরাচ্ছে ও হুমকি দিচ্ছে। তারা রয়ে গেছেন ধরা ছোয়ার বাইরে।

এদিকে বিশেষ সূত্রে জানা যায়  মহেশপুর থানার সাব  ইন্সপেক্টর জুম্মন এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ এসে ভয় ভীতি দেখিয়ে হাসপাতাল থেকে তাদেরকে রিলিজ নিতে বলেন।

এ ব্যাপারে  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান মামলা দায়ের করা হয়েছে । আইন অনুযায়ী ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।তিনি এর বেশি কিছু বলতে রাজি হননি।  ভুক্তভুগি সাংবাদিক দের মাধ্যমে দেশ ও দেশের মানুষ ও সরকার কে জানাতে চায় তাদের উপর নির্যাতন ও নিপীড়ণের ঘটনা , ও প্রশাসন যেন এর সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীকে সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হয়।

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি :

৬-২-২০২৪ দুপুর ৩:৩

news image

ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলাধীন ৭ নং কাজীরবেড় ইউনিয়ন এর পলিয়ানপুর গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহা: জহুরুল ইসলামের উপর একই গ্রামের মোঃ সাইফুল ইসলাম , মোঃ ইয়ানুর ও তরিকুল ইসলাম  দেশীয় অস্ত্র রামদা , হাসুয়া  ও চাইনিজ কুড়াল দিয়ে এর বাড়ীতে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিত ভাবে হামলা করে।

মোঃ জহিরুল ইসলামের স্ত্রী মোসা:  মোমেনা বেগমের ক্রয় কৃত ১১ শতক জমি কে কেন্দ্র  করে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে পরিকল্পিত ভাবে হামলা করে। হামলায় জহিরুল ইসলামকে মাথায় , মুখ, ও হাতে আঘাত করে। 

এতে তিনি গুরুতর ভাবে জখম হন। চিৎকার শুনে মোঃ  মুছা করিম,মোঃ বোরহানউদ্দিন , ও মোঃ মাজহারুল ইসলাম নয়ন  সাহায্য করতে এগিয়ে এলে তাদেরকেও গুরুতর  ভাবে জখম করা হয়।

এ ধরনের ঘটনায় এলাকা বাসি ও অনেক আতঙ্কে দিন পার করছে। মোঃ মোরশেদুল ইসলাম বলেন আমি অফিস থেকে এসে আমার বাবা দাদার এ অবস্থা দেখে তাদের কে সরকারি সদর হসপিটালে ভর্তি করি।

রাতের বেলা বাড়ি ঘর  ভাঙচুর ও করা হয়েছে। বাড়ীর মূলফটকের তালা ভেঙ্গে বাড়ির ভিতর প্রবেশ করে। ঘরের ক্লপসিপল গেটে আঘাত করে। বাহিরের দরজার হেজবল্ট ভেঙ্গে ফেলে এবং ভিতরে ঢুকার চেষ্টা করে।

অভিযোগ দায়ের করলেও যথাযথ বিচার না হওয়ায় স্থানীয় জনগনের মধ্যে ক্ষোভের  সৃষ্টি হয়েছে।  তিনি আরো জানান তাদেরকে হত্যা ও সম্মানহানি করার জন্য পূর্বপরিকল্পিত ভাবে বাড়ীতে ভাঙচুর ও হামলা চালানো হয়েছে।  

এ বিষয়ে মহেশপুর থানায় গত ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং তারিখে মামলা  রুজো  করা হয়।  যার নম্বর মহেশপুর থানা মামলা  ৪০/২৪ নং  দায়ের করা হয়েছে কিন্ত আসামীগণ এখনও ঘুরে বেরাচ্ছে ও হুমকি দিচ্ছে। তারা রয়ে গেছেন ধরা ছোয়ার বাইরে।

এদিকে বিশেষ সূত্রে জানা যায়  মহেশপুর থানার সাব  ইন্সপেক্টর জুম্মন এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ এসে ভয় ভীতি দেখিয়ে হাসপাতাল থেকে তাদেরকে রিলিজ নিতে বলেন।

এ ব্যাপারে  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান মামলা দায়ের করা হয়েছে । আইন অনুযায়ী ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।তিনি এর বেশি কিছু বলতে রাজি হননি।  ভুক্তভুগি সাংবাদিক দের মাধ্যমে দেশ ও দেশের মানুষ ও সরকার কে জানাতে চায় তাদের উপর নির্যাতন ও নিপীড়ণের ঘটনা , ও প্রশাসন যেন এর সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীকে সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হয়।